উনকোটি : কারুকাজে ঘেরা অপরূপ শৈলশহর – শহুরে সীমানা পেরিয়ে এক নতুন পথের হদিস

0
412

পাথরের উপর খোদাই করা ঈশ্বরমূর্তি। অপরূপ কারুকাজে ঘেরা ত্রিপুরার শৈলশহর ‘ঊনকোটি’। এই মুহূর্তে ত্রিপুরার অন্যতম মাস্ট ভিজিট প্লেস৷

ঊনকোটির সমস্ত ইতিহাস জড়িয়ে আছে তার নামকরণে৷ কেন এমন নাম? কি তার মাহাত্ম্য?
ঊনকোটি শব্দের বাংলা অর্থ এককোটি থেকে এক কম। ত্রিপুরার অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র হল শৈব তীর্থ ঊনকোটি। এই পর্যটন কেন্দ্রটি আগে উত্তর ত্রিপুরা জেলার অন্তর্গত ছিল এবং বর্তমানে ঊনকোটি জেলার কৈলাসহরে অবস্থিত।

উনকোটি :ঊনকোটি জেলার কৈলাসহরে

হিন্দু পুরানের এই নামকরণের কাহিনীতে কথিত আছে যে কালু কামার নামে একজন স্থাপত্যকার ছিলেন, সেই সাথে দেবী পার্বতীর ভক্ত ছিলেন। একবার দেবী-মহাদেবের সাথে কৈলাসে যাচ্ছিলেন তখন কালু কামার বায়না ধরলেন তাকে যেন তাদের সঙ্গে নেন। তখন মহাদেব তাঁর উপর শর্ত আরোপ করে বলেন উনি যেতে পারেন তবে তার জন্য তাকে এক রাত্রির মধ্যে এককোটি দেবদেবীর মূর্তি তৈরী করে দিতে হবে। কিন্তু কালু কামার এককোটি থেকে একটি কম মানে ঊনকোটি টি মূর্তি তৈরী করে দিতে সক্ষম হন।

ঊনকোটির মুর্তিগুলি নিয়ে একাধিক কাহিনি প্রচলিত আছে, তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য আর একটি কাহিনি আছে, যার কেন্দ্রীয় চরিত্র হল মহাদেব। দেবাদিদেব শিব একবার দেবতাদের নিয়ে ত্রিপুরার উপর দিয়ে বারানসী যাচ্ছিলেন। মহাদেবকে নিয়ে দেবতাদের সংখ্যা ছিল এক কোটি। সন্ধ্যে নামার পর রাত্রিবাসের ব্যবস্থা হয় এই রঘুনন্দন পাহাড়ে। পথপরিশ্রমে ক্লান্ত দেবতারা গভীর নিদ্রায় অচেতন হলেন। পরেরদিন সূর্যোদয় হওয়ার আগে সবার বারানসীর উদ্দেশে যাত্রা করার কথা, কিন্তু মহাদেব ছাড়া অন্য কোনো দেবতাদের নিদ্রাভঙ্গ হল না। মহাদেব বিরক্ত হয়ে একাই বারানসীর উদ্দেশে রওনা দিলেন। গভীর নিদ্রায় সমাধিস্থ দেবতাদের কালনিদ্রা আর ভাঙ্গল না এবং তারা অনন্তকালের জন্য পাথর হয়ে রইলেন। এই দেবতাদের সংখ্যা ছিল এক কম কোটি তাই ঊনকোটি। সেই থেকেই এই রঘুনন্দন পাহাড় হয়ে গেল শৈবতীর্থ ঊনকোটি।

পাহারের নীচে অবস্থিত এই ঊনকোটি নিঃসন্দেহে চমৎকার একটি জায়গা । মনে হবে নিস্তব্ধ শহরে একটি টিমটিমে আলো। পাহাড়ের নিস্তব্ধতায় দুটো দিন মন্দ কাটবে না৷

কিভাবে যাবেন

ভারতের যে কোন জায়গা থেকে ট্রেনে আগরতলা যাওয়ার আগেই ধর্মনগর স্টেশন থেকে পৌঁছাতে পারবেন ঊনকোটি, অথবা আগরতলা থেকে আসতে পারবেন । সেক্ষেত্রে কুমারঘাট নামলেও হবে । উল্লেখ্য এই শহর থেকে আগরতলা ১৮০ কিলোমিটার প্রায় ।


একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে