পুজোর দিন গুলোয় সবার নজর থাকুক আপনার দিকেই

0
471

ক্যালেন্ডার বলছে পুজো আসতে আর মোটামুটি একমাস। আর তাই এই সময় ত্বকের যত্ন নেওয়া খুব জরুরি। তবেই তো পুজোর সময় প্রাণ পাবে ত্বক। প্রাকৃতিক উপাদানে ত্বকের পরিচর্যার জন্য সবচেয়ে ভাল অ্যারোমাথেরাপি, অরগ্যানিক উপাদানে তৈরি প্রসাধনী।

অ্যারোমাথেরাপি

গাছের ফুল, ফল, পাতা, গাছের ছাল, কান্ড, শিকড় – প্রতিটা অংশের থেকে তেল নিঃসরণ করে তৈরি হয় অ্যারোম্যাটিক অয়েল, যাকে চলতি কথায় বলা হয় এসেনশিয়াল অয়েল। গোলাপ, ল্যাভেন্ডার, ভেটিভার, জায়ফল, কমলা, মৌরি, জাফরান, জুঁই- এরকম নানাবিধ উপকরণ থেকে খাঁটি তেলের নির্যাস ব্যবহৃত হয় অ্যারোমাথেরাপি প্রোডাক্টে। ত্বক ও চুলের সমস্যার পাশাপাশি মুড সুইং, স্ট্রেস, অ্যাংজাইটি, সর্দি-কাশি, মাথাব্যথা, মাইগ্রেনের মতো সমস্যাতেও কাজ দেয় এই অ্যারোমাথেরাপি।এসেনশিয়াল অয়েল সরাসরি ত্বকে ব্যবহার করা উচিত নয়, এর সঙ্গে মিশিয়ে নিতে হয় ক্যারিয়ার অয়েল বা জল। ক্যারিয়ার অয়েল হতে পারে অলিভ, আমন্ড, জোজোবা, সেসমি, গ্রেপসিড, অ্যাপ্রিকট, ক্যাস্টর, সানফ্লাওয়ার বা অন্যান্য। ক্যারিয়ার অয়েল কেনার সময় দেখে নিন তা কোল্ড প্রেসড কি না। এসেনশিয়াল অয়েল কনসেনট্রেটেড, তাই লাগে দু’-চার ফোঁটা। এসেনশিয়াল ও ক্যারিয়ার অয়েল সঠিক অনুপাতে মিশিয়ে তৈরি হয় স্কিন অয়েল, হেয়ার অয়েল, বডি অয়েল, যা সহজেই আপনি কিনতে পাওয়া যায় বাজারে। ব্রাইটেনিং, টাইটেনিং, নারিশিং, ব্লেমিশ কনট্রোল, অ্যান্টি এজিং এমন নানারকম অ্যারোমা অয়েল পাওয়া যায়। অ্যারোমাথেরাপিতে মাসাজ ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ। যে কোনও অয়েল বা অয়েল মিশ্রিত ক্রিম বা লোশন ত্বক বা চুলে অ্যাপ্লাই করার পর দু’-পাঁচ মিনিট মাসাজ করুন যাতে সহজে মিশে যায়। ত্বকের ধরন ও সমস্যা জেনে নিয়ে তবে অ্যারোমা বেসড প্রোডাক্ট কিনুন। খাঁটি এসেনশিয়াল অয়েল মিশ্রিত প্রোডাক্টের দাম স্বাভাবিক ভাবেই একটু বেশি।

অরগ্যানিক

চাল-ডাল থেকে বিউটি রিজিম- অরগ্যানিক প্রোডাক্টের ক্রেজ এখন চারদিকে। সবজি ও ফলের ওপর অরগ্যানিক স্টিকার সাঁটিয়েও দেদার বিকোচ্ছে হাইব্রিড ফলন। তেমনই নকল অরগ্যানিক প্রোডাক্টেও বাজার ছয়লাপ। অরগ্যানিক প্রোডাক্ট কেনার আগে প্রথম জেনে রাখুন যে কোনও অরগ্যানিক প্রোডাক্টের দাম সাধারণ কসমেটিক, হার্বাল প্রোডাক্টের তুলনায় বেশি। যে কোনও খাদ্যদ্রব্যে ‘অরগ্যানিক’ লেবেল লাগানোর শর্ত তাতে ব্যবহৃত অন্ততপক্ষে ৯৫ শতাংশ উপাদান অরগ্যানিক থাকতে হবে। যে সমস্ত প্রোডাক্ট সিন্থেটিক উপাদান বর্জিত, সেগুলোই অরগ্যানিক নামে প্রচলিত।
প্রোডাক্ট কেনার সময় আপনার পছন্দের প্রোডাক্ট সার্টিফায়েড কি না দেখে নিন। স্কিন কেয়ার, সান কেয়ার ট্রিটমেন্ট, মেকআপ- অরগ্যানিক রেঞ্জে পেয়ে যাবেন যাবতীয়। ‘ইউনাইটেড স্টেটস ডিপার্টমেন্ট অফ এগ্রিকালচার’ অনুযায়ী কোনও প্রোডাক্ট যদি ১০০ শতাংশ অরগ্যানিক লেখা থাকে, তা হলে দেখে নিন তাতে ব্যবহৃত সমস্ত উপাদান ৯০ শতাংশ অরগ্যানিক কি না। যদি প্রোডাক্টের লেবেলে লেখা থাকে মেড উইথ অরগ্যানিক ইনগ্রেডিয়েন্ট তাহলে নুন ও জল বর্জিত প্রোডাক্টটিতে থাকতে হবে ৭০ শতাংশ অরগ্যানিক উপকরণ। সেনসিটিভ ত্বক হলে ফ্র‌্যাগ্র‌্যান্স অর্থাৎ গন্ধবিহীন অরগ্যানিক প্রোডাক্ট কিনুন, নাহলে র‌্যাশ বা অ্যালার্জির সমস্যা দেখা দিতে পারে।

মনে রাখবেন মেক আপ ভালো হওয়ার জন্য সবার আগে প্রয়োজন সুন্দর মসৃণ ত্বক৷ তাই পুজোর আগে এভাবেই প্রাণবন্ত করে তুলুন ত্বককে, সাথে অবশ্যই প্রয়োজন হেলদি ডায়েট এবং পর্যাপ্ত ঘুম৷ ব্যস পুজোর দিন গুলোয় আপনিই অনন্যা।

আরও পড়ুন

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে