প্যারালিম্পিকে ইতিহাস গড়লেন ভারতের ভাবিনা প্যাটেল

0
56

হুইলচেয়ারে বসেই প্রতিপক্ষের সঙ্গে বুঝে নিচ্ছেন ব্যাট বলের লড়াই। গুজরাটের মেয়েটা টোকিওর মাটিতে গড়ে ফেললো এক নয়া ইতিহাস। হ্যাঁ কার্যত ইতিহাসেই পৌঁছে গেলেন ভারতের ভাবিনা প্যাটেল। প্রথমবার প্যারালিম্পিকে অংশ নিয়েই টেবিল টেনিসে রুপো জিতে নিলেন তিনি। শরীর তার আংশিক কার্যক্ষমতা হারালেও আত্মবিশ্বাসে এতটুকু চির ধরাতে পারেনি কোনোদিনই। আর তারই ফলস্বরূপ প্যারা অলিম্পিকের মঞ্চে আরও একবার তেরঙ্গার গর্বের রঙ উজ্জ্বল করলেন ভাবিনা। পদক জয় নিশ্চিত করেছিলেন তিনি আগেই। ২৯শে অগাস্ট, চূড়ান্ত পর্বের প্রতিযোগিতায় লক্ষ্য ছিল ফাইনাল জিতে তিনি দেশের জন্য সোনার পদক নিয়ে আসতে পারেন কিনা। কিন্তু ফাইনালে বিশ্বের একনম্বর প্যাডলার চিনের ইয়াং ঝৌ-য়ের কাছে ০-৩ হেরে যান তিনি।


৩৪ বছরের ভাবিনা প্যাটেলের প্যারাঅলিম্পিক টুর্নামেন্টে স্বপ্নের দৌড় শেষ হয় ৭-১১, ৫-১১, ৬-১১ ফলাফলে।
মাত্র ১২ মাস বয়সেই পোলিও-র শিকার হন ভাবিনা। শরীরের সেই প্রতিবন্ধকতাকে নিয়েই ইতিহাস গড়েছেন। সেমিফাইনালে বিশ্বের তিন নম্বর চিনা প্রতিদ্বন্দী মিয়াও ঝাং-কে পরাস্ত করেন ৭-১১, ১১-৭, ১১-৪, ৯-১১, ১১-৮ ফলাফলে। তার আগে কোয়ার্টার ফাইনালে ভাবিনা পরাস্ত করেছিলেন রিও প্যারালিম্পিকের সোনা জয়ী প্যাডলার বিশ্বের দুই নম্বর সার্বিয়ার বরিস্লাভা পেরিচ রাঙ্কভিচকে।
ফাইনাল ম্যাচের সকালে টিভির পর্দায় চোখ রেখেছিল গোটা দেশ। দু’চোখ ভরা স্বপ্ন ও উৎকণ্ঠা নিয়ে অপেক্ষায় প্রহর গুনছিল গুজরাটের প্যাটেল পরিবার। না সোনা হয়তো আসেনি, কিন্তু তাতে কি? মেয়ে ফাইনাল হেরে গেলেও ম্যাচ শেষ হতেই উচ্ছ্বাসে আবেগে আত্মহারা হয়ে পড়ে এই ভারতীয় প্যারা অ্যাথলিটের পরিবার। ভাবিনার সাফল্যে গর্বিত তাঁর পরিবারের সদস্যরা একে অপরকে মিষ্টিমুখ করান। আনন্দে আবির খেলার পাশপাাশি গুজরাটের সনাতন ‘গরবা’ নাচে মেতে ওঠেন টোকিও প্যারালিম্পিকে রুপোজয়ী পাডলারের প্রিয়জনরা। ভাবিনার সাফল্যে উচ্ছ্বসিত নেটিজেনরাও। মেয়ের অপেক্ষায় বসে রয়েছেন প্যাটেল পরিবারের সদস্যরা। শহরে ফিরলেই রাজকীয় অভ্যর্থনা সহকারে ঘরে নিয়ে আসা হবে ভাবিনাকে।
সর্বক্ষণের সঙ্গী বলতে ওই হুইলচেয়ারটাই। শুধু বরফ কঠিন জেদ, আর আত্মবিশ্বাস তাঁকে কখনও নিজের কাছে হেরে যেতে দেয়নি। বরঙ দেশ জুড়ে স্বর্ণাক্ষরে লিখে দিয়েছে ‘ভাবিনা প্যাটেল’ নামটা। একজীবনের স্বার্থকতা তো এটুকুই।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে